আজ মঙ্গলবার, ১৫ই ফাল্গুন ১৪৩০, ২৭শে ফেব্রুয়ারি ২০২৪

প্রাথমিক শিক্ষায় ভাল অবদান রাখলেও বহুতল ভবন পাননি বিউগল বর্ডার গার্ড সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়

মেহেদি হাসান

চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায় প্রাথমিক শিক্ষার বিকাশে ভাল অবদান রাখলেও জাতীয়করণ হওয়ার দীর্ঘদিনেও বহুতল ভবন পাননি ১২৫ নং বিউগল বর্ডার গার্ড সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় । অথচ জেলায় প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা, বৃত্তি পরীক্ষা, কাব স্কাউট, বিভিন্ন জাতীয় দিবসের প্রতিযোগিতা, ১৬ ডিসেম্বর,২৬ মার্চ, মিনা দিবস, বিজয় ফুল তৈরি দিবস গুলোতে ভাল ফলাফল অর্জন করেছে বিদ্যালয়টি। বর্তমানে বিদ্যালয়টিতে ৩টি ছোট ভবন থাকলেও একটি আধাপাকা টিন শেডের বহু পুরানো ভবন যেখানে ঝুকি নিয়ে ৪টি রুমে ক্লাস করতে হয়। ভবনটির টিনশেড যেন মরিচা লেগে ঝড়ে পড়ছে। আর সামান্য বৃষ্টিপাত হলে এতে পানি পড়ে তখন শিক্ষার্থীদের ক্লাস করতে কষ্ট হয়। বর্তমানে বিদ্যালয়টিতে ১৩ টি ক্লাস রুম লাগলেও রয়েছে মাত্র ৭টি ক্লাসরুম।

সরেজমিন পরিদর্শন ও ১৯৮১ বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠার পর হতে বিভিন্ন তথ্যে দেখা গেছে, ১৯৮১ সালে ১ম শ্রেনী থেকে ৩য় শ্রেণীতে ২৫জন ছাত্র-ছাত্রী নিয়ে রাইফেলস্ শিশু নিকেতন নামে প্রথম পর্যায়ে চালু হয় বিদ্যালয়টি। এরপর ১৯৮২ সালে ৫ম শ্রেণী পর্যন্ত করা হয়। ১৯৮৩ সালে বিউগল নামে বিদ্যালয়টি জাতীয়করণ করা হয়। বর্তমানে এর বিউগল বর্ডারগার্ড সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। বিগত দশ বছরের প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষার ফলাফলে শতভাগ শিক্ষার্থীকে কৃতকার্য হতে দেখা গেছে। ২০০৪ সাল থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত এ বিদ্যালয়ের ১২৪জন শিক্ষার্থী বৃত্তি পেয়েছে। এর মধ্যে ট্যালেন্ট পুলে ৭৫ জন ও সাধারণ গ্রেডে ৪৯। ২০১০ সালে বিদ্যালয়টি চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায় শ্রেষ্ঠ হবার গৌরব অর্জন করে। এছাড়াও ৫ম শ্রেণী পাস করার পর জেলার শীর্ষ দুই বিদ্যালয় হরিমোহন, গালস্ স্কুলে প্রতিবছর ১০ থেকে ১২জন চান্স পাচ্ছে।

২০১৮ সালে বিদ্যালয়ের প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষায় ৬৯ জন শিক্ষার্থী অংশগহন করে ৩৮জন শিক্ষার্থী এ প্লাস অর্জন করে। এছাড়াও সর্বশেষ ২০১৯ সালের সমাপনী পরীক্ষায় বিদ্যালয়ের ছাত্র নাজীর মাহমুদ ৬০০ মার্কের পরীক্ষার মধ্যে ৫৯৭ নাম্বার পায়। বিদ্যালয়ের বর্তমান প্রধান শিক্ষক গোলাম ফারুক আহমদ জানান, আমাদের বিদ্যালয়ে বর্তমানে ছাত্র-ছাত্রীর অনুপাতে ১৩টি ক্লাস রুম দরকার সেখানে রয়েছে মাত্র ৭টি তার মধ্যে একটি বহু পুরানো আধাপাকা টিন শেডের ভবন রয়েছে ছাত্র-ছাত্রীরা ঝুকি নিয়ে ক্লাস করে। তিনি আরো জানান, কল্যাণপুর, বিজিবি কোয়াটার, প্রান্তিকপাড়া ও নতুন হুজরাপুর এলাকা নিয়ে আমাদের ক্যাচমেন্ট এরিয়া। বিদ্যালয়টি প্রতিষ্টার পর থেকে অদ্যবদি অনেক ছাত্র-ছাত্রী যারা দেশের প্রশাসন ব্যবস্থা, ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, আর্মি অফিসার, বিজিবি অফিসার হওয়ার গৌরব অর্জন করেছে। আমরা বিদ্যালয়ে ভবন পেতে জেলা, উপজেলা শিক্ষা অফিসগুলোতে বারবার তাগাদা দিয়েছি। তাই আমাদের এ বিদ্যালয়ে একটি সুন্দর বহুতল ভবন পেলে আমরা প্রাথমিক শিক্ষায় আরো ভাল অবদান রাখতে পারবো।

বিউগল বর্ডার গার্ড সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আধাপাকা টিনশেড ও ঝুকিপূর্ণ ভবন সম্পর্কে জেলা প্রশাসক এ জেড এম নুরুল হককে অবগত করা হলে তিনি জানান, প্রাথমিক শিক্ষার ক্ষেত্রে বর্তমান সরকার খুবই আন্তরিক। প্রাথমিক শিক্ষার জন্য সরকার বছরের প্রথম দিনে বই দেয়া সহ প্রত্যেকটি বিদ্যালয়ে সুন্দর, সুসজ্জিত ভবন করে দিচ্ছে। শ্রীঘই তিনি বিদ্যালয়টি পরিদর্শন করবেন এবং জেলার অধিকাংশ প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মোটামুটি ভাল ভবন রয়েছে। যেগুলোতে নাই আগামী ১ বছরের মধ্যে সংশিষ্ট বিভাগকে অবহিত করে তা করার আশ্বাস দেন।

 

মন্তব্য সমুহ
০ টি মন্তব্য
মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন
এই শ্রেনির আরো সংবাদ

ফিচার নিউজ