আজ মঙ্গলবার, ২৩শে অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ৭ই ডিসেম্বর ২০২১

নির্বাচন থেকে সরে যাওয়ার প্রশ্নই আসে না, চায় সুষ্ঠু নির্বাচন- স্বতন্ত্র প্রার্থী লিটন

মেহেদি হাসান

৩০ নভেম্বর অনুষ্ঠিতব্য চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে মোবাইল ফোন প্রতীকের প্রার্থী সামিউল হক লিটন  কোনক্রমেই নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াবেনা। শেষ পর্যন্ত তিনি জনগণকে সাথে নিয়ে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দিতা করবেন। এজন্য তিনি জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, সাংবাদিকসহ বিভিন্ন সংস্থার কাছে নির্বাচন যাতে অবাধ,সুষ্ঠু হয় সেজন্য   সহায়তা চেয়েছেন।

সোমবার (২২ নভেম্বর) সকালে মোবাইল প্রতীকের অফিস ভাঙ্গচুরসহ সমর্থকদের হুমকী-ধামকী দেয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ এনে শহরের একটি রেস্টুরেন্টে সাংবাদিক সম্মেলন করেছে। লিখিত অভিযোগে তিনি বলেন, শুধমাত্র মোবাইল ফোন প্রতীকের ভোট করার জন্য গত ২ নভেম্বর রাতে তার দুই সমর্থক সোহেল ও রিপনকে বটতলাহাট এলাকায় এবং গত ১২নভেম্বর রাতে শহরের বিশ্বরোড মোড়ে মিলন নামে এক কর্মীকে এবং গত ১৯ নভেম্বর রাতে দুলাল ও দিদার নামে দু’জনকে মারধর করা হয়। এছাড়া ২০ ও ২১ নভেম্বর রাতে ৪টি নির্বাচনী অফিসসহ মোট ১৩টি অফিস ভাঙ্গচুরসহ অগ্নিসংযোগ করা হয়। এজন্য তিনি শহরের কয়েকজন চিহ্নিত সন্ত্রাসীকে দায়ী করলেও তাদের নাম পরিচয় জানাতে পারেননি তিনি। তিনি আরো অভিযোগ করেন, নৌকার কর্মীরা নিজেদের নির্বাচনী অফিস ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগ করে আমার কর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা দেয়া হবে  এমন পরিকল্পনা করছেন। এমন খবরে আমরা আতঙ্কিত। সম্প্রতির শহর চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনকে ঘিরে একটি অস্থিতিশীল পরিবেশ বিরাজ করছে যা নিবৃঅচনের গ্রহণযোগ্যতাকে প্রশ্নের সম্মুখীন করছে। স্থানীয প্রশাসনের উচিত নিরপেক্ষভাবে সহিংসতার অভিযোগ তদন্ত করে দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়। জনগণকে সুষ্ঠুভাবে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট প্রদানের সুযোগ করে দিতে স্থানীয় প্রশাসন প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে এটি আমার বিশ্বাস। 

উল্লেখ্য, আগামী ৩০ নভেম্বর চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এতে আওয়ামী লীগ মনোনীত ও স্বতন্ত্র প্রার্থীসহ ৪জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। 

মন্তব্য সমুহ
০ টি মন্তব্য
মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন
এই শ্রেনির আরো সংবাদ

ফিচার নিউজ