আজ রবিবার, ৩রা মাঘ ১৪২৭, ১৭ই জানুয়ারী ২০২১

নাচোলে সিন্ডিকেটের মাধ্যমে চলছে অবৈধভাবে সার ক্রয় বিক্রয়

চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোলে সারের সরকারি  ডিলার না হয়েও অবৈধভাবে মজুদরাখা ও একটি সিন্ডিকেট  কৃষকের কাছে বেশি দামে বিক্রি করে চলছে। আর এসব সিন্ডিকেটের সাথে  উপজেলা কৃষি কর্মকর্তার গভীর যোগসাজশ থাকায় তারা ধরাছোয়ার বাইরে থাকছে। 

আর এসব সিন্ডিকেটকে ধরতে বৃহস্পতিবার রাতে জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা এনএসআইয়ের তথ্যের ভিত্তিতে এ অভিযান পরিচালনা করেন নাচোল উপজেলা সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট খাদিজা বেগম।

এ সময় শফিকুল ইসলাম স্বপনের গুদামে অবৈধভাবে মজুদ রাখা ১ হাজার ৪৮৫ বস্তা বিভিন্ন ধরনের সার পেয়ে গুদাম সিলগালা করা হয়েছে। পরে স্বপনকে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট  খাদিজা বেগম  ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদ- ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেন।  

অন্যদিকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানের বিষয়টি কৃষি কর্মকর্তার  মাধ্যমে আগেই ফাঁস হওয়ায় চোরাই সার সিন্ডিকেটের অন্যতম মূলহোতা তরিকুল আলম ও তার ভাই  তৈমুর আলী উপজেলার নাচোলবাজার ও রাজবাড়ীহাটে থাকা তাদের দুটি গুদামে তালা দিয়ে আত্মগোপন করেন। পরে তরিকুল অসুস্থতার ভান করে রাতে হাসপাতালে ভর্তি হন। অভিযোগ রয়েছে তরিকুল নাচোল সাপাহার, পোরশা,নিয়ামতপুর ও ম-ুমালা এলাকায় অবৈধভাবে সার বিক্রি করে আসছেন। 

নাচোলে গড়ে উঠা বিশাল সার সিন্ডিকেটের হোতাদের সঙ্গে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তার গভীর যোগসাজশ থাকায় দীর্ঘদিন ধরে সারের কালোবাজারি চলছে বলে গোয়েন্দা সংস্থার কর্মকর্তারা নিশ্চিত হয়েছেন। সারের মতো স্পর্শকাতর একটি সরকারি পণ্য নিয়ে কারসাজিতে সহযোগিতার জন্য কৃষি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ঊর্ধ্বতন কর্র্তৃৃপক্ষকে জানিয়ে ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ দেয়া হবে বলে জানিয়েছে সংশিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

এছাড়াও উপজেলার নেজামপুর বাজারে আতাউর রহমানও অবৈধভাবে নাচোলসহ বরেন্দ্র অঞ্চলে বিভিন্ন স্থানে সার বিক্রি ও সরবরাহ করছে।   


মন্তব্য সমুহ
০ টি মন্তব্য
মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন
এই শ্রেনির আরো সংবাদ

ফিচার নিউজ